share market

ব্যুরো নিউজ, ১১ জুলাই:লোকসভা নির্বাচনের কারণে ২০২৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাস নাগার ভোট অন অ্যাকাউন্ট পেশ করা হয়। পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করা সম্ভব হয়নি। সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী তা সম্ভব নয়। এবার তৃতীয়বার মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরেই পূর্ণাঙ্গ বাজেট (Union Budget 2024) পেশ করতে চলেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। চলতি মাসেই বাজেট পেশ হতে চলেছে। আগামী ২৩ জুলাই সংসদে বাজেট পেশ করবেন সীতারামন। আর এই বাজেটকে ঘিরে দেশের আমজনতার বহু প্রত্যাশা রয়েছে। কারণ এবার দেশজুড়ে সাধারন নির্বাচনের ফলাফল বিশ্লেষণ করলে দেখা যাবে, মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং গরিব শ্রেণীর দৈনন্দিন জীবন যাপন যথেষ্ট সমস্যা জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর তার প্রতিফলন কিছুটা হলেও পড়েছে সাধারণ নির্বাচনে। যদিও দেশবাসী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপরেই ফের ভরসা করেছেন। এবারের বাজেটে সাধারণ মানুষের দিকে তাকিয়ে একাধিক বড় ঘোষণা করতে পারে মোদী সরকার। নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্ত এবং করদাতাদের জন্য বহু বড় ঘোষণা হতে পারে।

এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করলেই গ‍্যারান্টি ছাড়া লক্ষ টাকার লোন দিচ্ছে কেন্দ্র,হয়ে যাবেন মালামাল

বাজেট ঘোষণা হওয়ার পরে শেয়ার দর হু হু করে চড়তে থাকে

তবে বাজেট মানেই তার আগে শেয়ার বাজার নিয়ে একটা দোলাচলের পরিস্থিতি তৈরি হয়ে যায়। যারা স্টক মার্কেট সম্বন্ধে একটু আধটু খোঁজখবর রাখেন, তারা জানেন, এই বাজেটের দিকেই দালাল স্ট্রিট তাকিয়ে রয়েছে। বাজেট ঘোষণা হলেই শেয়ার বাজারে (Share Market Changed) বড় পরিবর্তন হতে পারে। বেশ কিছু সংস্থার স্টক জেটগতিতে বৃদ্ধি পেতে পারে। এর আগেও দেখা গিয়েছে, বাজেটে যে খাতগুলি নিয়ে সরকারের তরফে বেশ কিছু ঘোষণা করা হয়, সেই সংস্থার স্টক বাজেটের আগেই বাড়তে শুরু করে দেয়। আর বাজেট ঘোষণা হওয়ার পরে শেয়ার দর হু হু করে চড়তে থাকে। যারা শেয়ার মার্কেটের বিশেষজ্ঞ, তারা মোটা মুনাফা করার লক্ষ্যে বাজেটের আগেই বেশ কিছু শেয়ার কিনে রাখেন। আর বাজেট ঘোষণা হওয়ার পরেই তারা একেবারে মালামাল হয়ে যান।

‘খোরপোশ  অধিকার দয়া দাক্ষিণ্য নয়’ মুসলিম মহিলাদের আলোর নিশানা

এবার দেখা যাক, ২০২৪ এ বাজেট ঘোষণার পর কোন কোন সংস্থার শেয়ার মার্কেট চড়তে পারে? এখনো পর্যন্ত বিভিন্ন সূত্র মারফত যা জানা যাচ্ছে, কেন্দ্রীয় সরকার আবাসন, পরিকাঠামো, প্রতিরক্ষা, পি এস ইউ, টেক্সটাইল এবং রপ্তানি সংক্রান্ত ক্ষেত্রগুলিতে বিরাট বড় কিছু ঘোষণা করতে পারে। ফলে এই ক্ষেত্রের শেয়ার বাজার চড়তে পারে। প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সামগ্রিকভাবে দেশকে আরো মজবুত করার জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধি করতে পারে সরকার। কারণ পড়শী দেশ বিশেষ করে চীন, পাকিস্তানের সঙ্গে একটা অম্ল- মধুর সম্পর্ক রয়েছে। প্রতিরক্ষার সঙ্গে যুক্ত বহু সংস্থা, যেরকম- ভারত ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড, হিন্দুস্তান অ্যারোনটিক্স লিমিটেড, এই সংস্থাগুলির শেয়ার মার্কেট চড়তে পারে। পাশাপাশি, পি এস ইউ অর্থাৎ পাবলিক সেক্টর আন্ডারটেকিংএ সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে শুরু করেছে। বিশেষ করে ব্যাংকিং সেক্টরের শেয়ারের দাম জেট গতিতে বাড়তে পারে। আর পরিকাঠামো ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত যে সমস্ত সংস্থা তাদের শেয়ার দর বাড়ার সম্ভাবনা এমনিতেই থাকে। কারণ কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বাজেটে পরিকাঠামো ক্ষেত্রে একটা বরাদ্দ সবসময় লক্ষ্য করা যায়।
শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ ঝুঁকিপূর্ণ। তাই বিনিয়োগের আগে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরামর্শ করেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর