illigal constraction at digha

ব্যুরো নিউজ, ১১ জুলাই: রাতের অন্ধকারে হোটেল ব্যবসার জন্য নেওয়া জমি দখল করে নেওয়া হচ্ছে। এক ব্যবসায়ী প্রায় ৫ বছর আগে দীঘা উন্নয়ন পর্ষদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ দর দিয়ে প্রায় তিন একর জমি কেনেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পর্যটন শিল্পে শিল্পপতিদের এগিয়ে আসার জন্য আবেদন করেন। আর তার সেই কথায় উৎসাহিত হয়েই দীঘায় ৮০ কোটি টাকার হোটেল ব্যবসার জন্য কেনে ওই ব্যবসায়ীর সংস্থা। আর এর পরেই ঘুরে যায় খেলা। অভিযোগ ওঠে, রাতের অন্ধকারে তার ওই সর্বোচ্চ দরে ৩ একর কেনা জমি থেকে একাংশ কেউ বা কারা দখল করে নেওয়া শুরু করেছে। কিন্তু কারা দীঘা উন্নয়ন পর্ষদের কাছ থেকে নেওয়া জমি দখল করার সাহস পাচ্ছে? এই বিষয়ে নাম না করে দীঘা শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদকেই অভিযোগের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন ওই ব্যবসায়ী সংস্থার ডিরেক্টর নিত‍্যহরি কুন্ডু।

সূদুর বিদেশেও মোদী ম‍্যাজিক!নোবেলজয়ীর কথায়, মোদীর গুণ রাষ্ট্রনেতাদের থাকা উচিত

জেলাশাসকের নীরব থাকায় স্থানীয় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও একাধিক প্রশ্ন উঠে

ডিরেক্টর কুন্ডু অভিযোগ করে বলেন, দীঘা শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদকে এই জমি দখল হওয়ার ঘটনা সমাধান করার জন্য জানানো হয়েছিল। কিন্তু তাতে সুরাহা না হওয়ায় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলাম। আদালতের সেই নির্দেশ অমান্য করেই আমাদের যে প্রস্তাবিত হোটেলের জায়গা, তার একাংশ জমি দখল করে অবৈধ নির্মাণ শুরু করে দিয়েছে। ওই সংস্থার ডিরেক্টর নিত্যহরি কুন্ডু বলেন, ৮০ কোটি টাকা খরচ করে ১২০ টি রুমের হোটেল তৈরি করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। অন্তত সেই জায়গায় ৩০০ মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। প্রসঙ্গত, পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দিরের আদলেই দীঘায় জগন্নাথ দেবের মন্দির তৈরি হচ্ছে। আর নিত্যহরি কুন্ডুর সংস্থা ওই মন্দিরের কাছাকাছি হোটেল তৈরীর পরিকল্পনা করে।

শুধুই কি মুখের কথা?মমতার ঘোষণার পরেও বুলডোজার নিয়ে রাতের অন্ধকারে নিউটাউনে পুলিশ, তারপর কি হলো!

এই প্রসঙ্গে তিনি অভিযোগ করেন, সরকারি আধিকারিকদের একাংশ এই ধরনের কাজে জড়িত রয়েছে। তা না হলে দিনের বেলায় এইভাবে কোম্পানির সীমানার পাচিল ভেঙে কিভাবে অবৈধ নির্মাণ শুরু করতে পারে?বিষয়টি নিয়ে দীঘা- শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের দায়িত্বে থাকা পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসককে প্রশ্ন করা হলে তিনি এর কোনো জবাব দেননি। আর জেলাশাসকের নীরব থাকায় স্থানীয় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও একাধিক প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী যেখানে পর্যটন শিল্পে উৎসাহিত করার জন্য ঘোষণা করছেন, সেখানেই আবার রাজ্য সরকারের একটি সংস্থা অর্থাৎ দীঘা- শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদকে জমি দখল করার অভিযোগে অভিযুক্ত করছেন ব্যবসায়ীর সংস্থা। এই ঘটনা ইতিমধ্যেই ব্যবসায়ী মহলে যথেষ্ট আলোড়ন ফেলে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর