Suvendu Adhikary on tmc

ব্যুরো নিউজ, ২১ এপ্রিল : তোমলুক বিজেপি মহিলা মোর্চার উদ্যোগে আজ মাতৃ বন্দন সমাবেশ। এদিন বিজেপি প্রার্থী প্রাক্তন বিচারক অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সমর্থনে সভা করেন।

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে চায়ের আমন্ত্রণ বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের

এদিন সভা মঞ্চ থেকেই শুভেন্দু অধিকারী জানান, বিজেপি কোনও বিভাজনের রাজনীতি করেনা। তিনি বলেন, অনেকেই বলেন বিজেপি হিন্দুদের দল, এই দল বিভাজন করে। কিন্তু ভারতীয় জনতা পার্টি বিভাজনের রাজনীতি করেনা। একই সঙ্গে তিনি বলেন, কিছুদিন আগেই পাঁচ রাজ্যে ভোট হয়েছে।  মিজোরাম, তেলেঙ্গানা, ছত্তিশগঢ়, মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থানে ভোট হয়েছে। সেখানে আপনারা দেখেছেন কংগ্রেসের নেতা ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়রা অবিসি, কাস্ট সেনসাসের জন্য রাস্ট্রবাদিদের মধ্যে বিভাজন আনার জন্য প্রচার করেছিলেন।  এমনকি প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন যে তারা কাস্ট সেনসাস চায়। কিন্তু আপনারা দেখেছেন ছত্তিশগঢ়, মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থানে বিজেপি বিপুল ভোটে জিতেছে। আর জোটের দিনই নরেন্দ্র মোদী সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

 

এরপরেই তিনি নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্য ও তার সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা নিয়ে বলেন, নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, আমার কাছে কোনও জাত, ধর্ম, সম্প্রদায় নেই। ভারতে চারটি জাতি আছে বলে মনে করি। যার জন্য আমি অঙ্গিকার বদ্ধ। সেই জাতি হল নারি জাতি, যুব জাতি, কৃষক জাতি ও দরিদ্র জাতি। আর এই চার জাতির জন্য তিনি কাজ করেতে চান বলেন জানান শুভেন্দু।

তিনি এও বলেন মোদীজী দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে এসেছে, তার মায়ের কষ্টঅতিনি দেখেছেন। তাই তার একাধিক স্কিম নারীদের জন্য। নরেন্দ্র মোদী দেশের জন্য ১৪ কোটি শৌচালয় বানিয়েছেন। এখানে শৌচালয়ের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে তিনি বলেন, বাড়িতে শৌচালয় না থেক্লে সবচেয়ে বেশি লজ্জিত, অপমানিত ও সবচেয়ে বেশি কষ্ট ভোগ করেন মহিলারাই।

এরপরেই শুভেন্দু অধিকারী রাজ্য সরকার ও রাজ্যের শাসকদল সহ- তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম নিয়ে বলেন, এই বাংলায় আজকে হারা টাকা নেই টাকা চাই, চিৎকার করে বেড়াচ্ছেন, বলছেন যে, কেন্দ্র টাকা দচ্ছে না। এই চোর মমতার সরকারকে ৭২ লক্ষ ইজ্জৎ ঘরের (শৌচালয় ) টাকা নরেন্দ্র মোদীর সরকার দিয়েছেন, ১২ হাজার টাকা করে মাথাপিছু শৌচালয়  নির্মাণের জন্য দিয়েছেন। কিন্তু সে টাকা আপনারা পাননি। কারন তৃণমূল ওটা খেয়ে ফেলেছে।

মোদীজী ১০ কোটির বেশি মহিলাদের বিনা মূল্যে ষ্টোভ ও গ্যাসের কানেকশান দিয়েছেন, এমনকি ১২ মাসে ১২ টি সিলিন্ডার দিয়েছেন। গ্যাসের দামেও উজালার গ্রাহকদের ছাড় দিয়েছেন। ৮১৩ টাকার বদলে ৫১৩ টাকার ভর্তুকিতে সেই গ্যাস দিয়েছেন মোদীজীর সরকার।

মোদীজী ৪ কোটি আবাস যোজনার বাড়ি তৈরি করেছেন। আর এই প্রসঙ্গ তুলেই রাজ্য সরকার ও আইপ্যাককে তুলোধোনা করেন শুভেন্দু  অধিকারী। তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গে এখন বাড়ির ফর্ম বেড়িয়েছে। চিটিংবাজ আইপ্যাকের ছেলে গুলো এই কাজ করছে। ওরা বাড়িতে বাড়িতে যেই নম্বর দিয়ে যাচ্ছে তা ভুয়,পরে সুইচঅফ করে দিচ্ছে। ৪ জুনের পর আর পাবেন না। এই নম্বর সুইচঅফ হয়ে যাবে। তিনি বলেন, আমি এই চিটার গুলকে চিনি। আমি তৃণমূল করতাম তখন খড়গপুর উপনির্বাচনে এই চিটার গুলো বলেছিল কারোর ক্লাব বানিয়েদেবে, কারোর মন্দির বানিয়ে দেবে। কিন্তু ভোটের পড়ে সব সুইচঅফ করে দিয়েছে। বাড়ির জন্য ফর্ম ফিলাপ করাচ্ছে, কবে পাবেন টাকা? বলছে ডিসেম্বরে পাওয়া যাবে। কিন্তু তত দিনে পিসি- ভাইপোকে ডকে তুলে দেব। এই ভোটের পরেই আর থাকবে না।

একই সঙ্গে তিনি এই চিটিংবাজদের থেকে সাবধান থাকার কথাও বলেন। আইপ্যাকের ওই চিটিংবাজরা এলে তিনি বলেন, ওদের বলবেন আগে বাড়ি গুলো দেখান। তারপর এই ফর্মে সই করব।

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর