বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

suger astro tip

ভাগ্য সহায় হবে, ফিরবে আর্থিক হাল! চিনির টোটকাই করবে কামাল

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন: অনেক সময়েই আমতা বলে থাকি সময়টা ভালো যাচ্ছে না। একের পর এক বিপদ-আপদ, সমস্যা পিছু ছাড়ে না। ফলে আর্থিক সমস্যার সৃষ্টি হয়। এতে বিঘ্নিতি হয় মেন্টাল পিসও, আর অন্যের কাছে হাত পাতলে তা আপনার সম্মানের ওপর প্রভাব ফেলে। তবে জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে অনেক ক্ষেত্রে শনির ও সাড়ে সাতির প্রভাবে এমন সমস্যা দেখা দেয় জীবনে তবে, তাঁর জন্য এমন অনেক কার্যকরী টোটকা রয়েছে। যা পাল্টে দিতে পারে আপনার জীবন। শুধু পানীয় নয় রূপচর্চাতেও ব্যবহার করুন চা-পাতা জ্যোতিষ শাস্ত্রে চিনির বিশেষ ব্যবহারের ফলে অনেক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আজ তেমনই বিশেষ কিছু চিনির টোটকা নিয়ে আলোচনা করব। যা আপনার এই সকল সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করবে। ১. শনির ও সাড়ে সাতির প্রভাব থেকে মুক্তি  পেতে এই চিনির এই টোটকা খুবই কার্যকর৷ শনির মহারোষ থেকে মুক্তি পেতে নারকেল কুড়িয়ে তাতে চিনি মিশিয়ে পিঁপড়েকে খাওয়ান। এতে শনিদেব তুষ্ট হয়। সন্তান পড়াশোনায় অমনোযোগী? মেন চলুন এই টোটকা ২. দীর্ঘ দিন ধরে সমস্যা পিছু ছাড়ছে না? এমন হলে, তামার ঘটিতে জল নিয়ে তাতে চিনি মিশিয়ে সেই চিনির জল খেলে উপকার পাবেন। ৩. জলের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে সূর্য দেবতাকে অর্পণ করলে তা খুবই ভালো প্রভাব ফেলে। এর ফলে কুষ্ঠিতে সূর্যের অবস্থান আরও শক্তিশালী হয় ৷ যার ফলে সমাজে মান-সম্মান বাড়ে। ৪. ব্যবসা-বাণিজ্যে বা কর্মক্ষেত্রে সমস্যা হলে আটার সঙ্গে চিনি মিশিয়ে কাক ও পিঁপড়েকে খাওয়ান। এতে সমস্যা দূর হয়ে যায় ৷ ৫. কোনও ইন্টারভিউ বা চাকরির পরীক্ষা দেওয়ার আগে ৷ তামার পাত্রে চিনিতে হল দিয়ে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। শুব কাজে যাওয়ার আগে পান করে বরোলে সেই কাজে সাফল্য আসবে।

আরো পড়ুন »
Astro tip for study

সন্তান পড়াশোনায় অমনোযোগী? মেন চলুন এই টোটকা

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন: অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় ছাত্র-ছাত্রীরা পড়াশোনা করতে চায়না। পড়তে বসলেও মন চঞ্চল। তার জেরে পড়া মনে রাখতে পারে না। সে সব ক্ষেত্রে বাচ্চার পড়াশোনার ক্ষেত্রে যেমন বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন তাঁর পাশাপাশি মেনে চলতে পারেন এই টোটকা। ফল পাবেন… বর্ষায় ব্যাগ ও জুতোর বিশেষ যত্ন এই চারটি টোটকা মেনে চললে সন্তানের পড়াশোনায় বাড়বে মনোযোগ ১. জ্যোতিষশাস্ত্র মতে,  ময়ূরের পালককে অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। তাই বইয়ের ভেতরে পাতার ভাঁজে যদি একটি ময়ূরের পালক রাখতে পারেন তবে পড়ুয়ার পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়বে। ২.ময়ূরের পালক বাড়িতে রাখাও অত্যন্ত ভালো। তাই বাচ্চার পড়ার টেবিলের সামনেও ময়ূরের পালক রাখতে পারেন। ৩. প্রতি একাদশী তিথিতে বাড়ির সদর দরজায় একটি চতুর্মূখী প্রদীপ জ্বালান। তবে এই প্রদীপ আপনি জ্বালালে হবে না। সন্তানকে দিয়ে সেই প্রদিপটি জ্বালান। ৪. গণেশের কৃপায় পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়ে। তাই চতুর্থী তিথিতে সিদ্ধিদাতা গণেশের আরাধনা করা অত্যন্ত শুভ। সন্তানকে দিয়ে গণেশকে দুর্বা ঘাস নিবেদন করান ফল পেবেন।

আরো পড়ুন »
RED CHILI ASTRO TIP

কর্মক্ষেত্রে বাধা, শত্রু দমন, নজর দোষ, উন্নতিতে বাধা? সকল সমস্যার একটাই সমাধান

ব্যুরো নিউজ, ১৯ জুন: কর্মক্ষেত্রে বাধা, শত্রু দমন, নজর দোষ, জীবনে উন্নতিতে বাধা? এই সকল সমস্যার একটাই সমাধান। শুকনো লঙ্কাতেই কাটবে এই সকল বিপত্তি। অনেক সময় দেখা যায় হওয়া কাজ হয়েও হল না। কিংবা ঘরে বাইরে শত্রুদের প্রভাবে জীবনে একের পর এক বাধা- বিপত্তি। এমনকি আপনার ভাল কোনও কিছুতেই নজর লেগে পণ্ড হচ্ছে সব। তবে এই কাজ গুলি করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। জানেন এক মুঠো কালো সরষের কামাল? বদলে যাবে জীবন জ্যোতিষ মতে, শুকনো লঙ্কা এই ধরণের প্রচুর সমস্যার সমাধান করতে পারে। কিন্তু কীভাবে করবেন প্রয়োগ? তিনটি মাটির প্রদীপে তিল, সাদা সর্ষে, গোটা ধনে, সাবান, নুন ও শুকনো লঙ্কা রাখতে হবে ৷ সেইগুলি কর্মস্থলে রেখে দিন। এতে কর্মক্ষেত্রে বাধা বিপত্তি দূর হয়ে জীবনে আসবে বিরাট সাফল্য। শুকনো লঙ্কার বীজ বের করে বালিশের নীচে রেখে ঘুমান ৷ পর দিন সকালে সাতবার মাথার উপরে ঘুরিয়ে বাইরে ফেলে দিন ৷ এতে সমস্ত বাধা বিপত্তি দূর হবে। কোনও শুভ কাজে বের হচ্ছেন, বা ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন? তবে বাড়ি থেকে বেরনোর আগে মেন গেটের বাইরে শুকনো লঙ্কা রেখে তা পাড়িয়ে এগিয়ে যান। আর পেছন ফিরবেন না। এর ফলে আপনি যে কাজের উদ্দেশ্যে বের হচ্ছেন তা সফল হবে ও শত্রুর উপদ্রবও কমবে। নজর লাগছে? তার জেরে ঘন ঘন শরীর খারাপে ভুগছেন? তবে ৭ টি শুকনো লঙ্কা নিন। যেই ব্যক্তির নজর দোষ কাটাতে চান তাঁর চারপাশে ৭ বার ঘোরান। এবার আগুনে পুড়িয়ে ফেলুন। অনেক দিন ধরে একের পর এক রোগে পিছু ছাড়ছে না? ভুগেই চলেছেন? তবে লাল কাপড়ে ৭টি জায়ফল, ৭টি শুকনো লঙ্কা, সাত টুকরো ফিটকিরি নিন ৷ সামান্য কালো তিল নিয়ে তা অসুস্থ মানু৷টির কাছাকাছি রাখুন ৷ পরের দিন সেটি অশ্বত্থ গাছের পাশে রেখে দিন ৷ এতে স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে ৷

আরো পড়ুন »
ASTRO TIPS

জানেন এক মুঠো কালো সরষের কামাল? বদলে যাবে জীবন

ব্যুরো নিউজ, ১৮ জুন : অর্থনৈতিক সংকট, নজর দোষ, ঘুমের সমস্যা, দুর্ভাগ্য কাটাতে সরষে খুবই কার্যকরী। জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে এই সকল সমস্যার সমাধান পাবেন কালো সরষেতে। আর তার জন্য রয়েছে কয়েকটি টোটকা। যা মেনে চললে বদলে যাতে পারে আপনার জীবন। চুলের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ধরে রাখতে জবা ফুল ছোট থেকে বড় নজর দোষ কাটাতে ভীষণ কার্যকর কালো সরষে। সরষে দিয়ে কীভাবে কাটাবেন নজর দোষ? এক মুঠো কালো সরষেকে একটি ছোট্ট সাদা কাপড়ের মধ্যে নিয়ে নিন। যার উপর থেকে নজর দোষ কাটাতে চাইছেন, তার চারদিকে অন্তত সাতবার ঘুরিয়ে এটিকে পুড়িয়ে ফেলুন, এতেই কেটে যাবে নজর দোষ। দাম্পত্য কলহ? সুখী হতে মেনে চলুন এই টোটকা অর্থনৈতিক সংকট কাটাতে সরষে কীভাবে ব্যবহার করবেন? বাস্তবিশেষজ্ঞদের মতে, অর্থনৈতিক সংকট থেকে মুক্তি পেতে হলে হাতে এক মুঠো কালো সরষে সাদা কাপড়ের নিয়ে নিন। এরপর এটি আপনার বিছানার তলেয় রেখে দিন। কয়েক মাসের মধ্যেই বুঝতে পারবেন উপকার। ঘুমের সমস্যায় সরষে কীভাবে ব্যবহার করবেন? অনেকেরই রাতে ঘুমের সমস্যা হয়ে থাকে। রাতে ঘুম আসতে চায়না। ফলে অনেকে চিকিৎসকের কাছেও ছুটে যান। তবে একবার এই কাজটি করতে পারেন। একটি সাদা কাপড়ে এক মুঠো কালো সরষে বেঁধে সেটি আপনার বালিশের তলায় রাখতে পারেন। এর ফলে মানসিক যন্ত্রণা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। পাশাপাশি সহজেই ঘুমাআসবে। এতে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ব্যক্তিও ধিরে ধিরে সুস্থ হয়ে উঠবে। দুর্ভাগ্য কাটিয়ে সাফল্য পেতে কীভাবে সরষে ব্যবহার করবেন? কালো সরষে কাজে সাফল্য আনতে সাহায্য করে। একটি সাদা কাপড়ের মধ্যে এক মুঠো কালো সরষে বেঁধে আপনার মানি ব্যাগে রাখতে পারেন। এতে অর্থনৈতিক সংকট দূর হবে। জীবনে সাফল্য আসবে।

আরো পড়ুন »
astro tips for relationship

দাম্পত্য কলহ? সুখী হতে মেনে চলুন এই টোটকা

ব্যুরো নিউজ, ১৭ জুন:  দাম্পত্য জীবনে কলহ পিছু ছাড়ছেনা? কর্মক্ষেত্রে চাপ, ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরে ফের সাংসারিক অশান্তি! আর এসব নিয়ে জীবন একেবারে অতিষ্ঠ? মেনে চলুন এই জ্যোতিষ টোটকা। ঘরে বসেই পান মুখে গোল্ডেন গ্লো, রইল টিপস পারিবারিক অশান্তি, আর্থিক সমস্যা- সহ নানা সমস্যায় জর্জারিত? অনেক সময় বাস্তু দোষেও এই ধরণের সমস্যা জীবনে দেখা যায়। আর তা থেকেই অনেক ধরনের অশান্তির মুখে পড়তে হয়। তবে দাম্পত্য জীবনে বাধা দূর করতে  জ্যোতিষীরা প্রথমেই যে পরামর্শ দিয়ে থাকেন তা হল- জাতক জাতিকার কুষ্টি বিচার করা প্রয়োজন। তা যদি না হয় তবে, দাম্পত্য জীবনে সুখের বাধা দূর করতে, জাতক জাতিকার জন্ম তালিকার গ্রহ যোগ অনুসারে অশুভ গ্রহকে শুভ করার ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। মাথায় ঋণের বোঝা? চিন্তায় ঘুম উড়তে বসেছে? এই জ্যোতিষ টোটকাতেই অর্থলাভ তবে বিবাহের আগে কুষ্টি বিচার করে পাত্র-পাত্রীর বিবাহ হলে দাম্পত্য কলহ অনেকটাই এড়ানো সম্ভব। এছাড়াও মেয়েদের ক্ষেত্রে মাঙ্গলিক চরণ থাকলে মঙ্গল গ্রহের পুজো ও বিষ্ণু যজ্ঞের দরকার। স্ত্রীর পছন্দ অনুযায়ী মিষ্টি এনে অন্তত সপ্তাহে একদিন স্বামীর খাওয়ানো উচিত। এতে সম্পর্কের তিক্ততা কাটে। স্ত্রী মিষ্টি পছন্দনা করলে তাঁর পছন্দের চকলেটও এনে দিতে পারেন। একে অপরকে ক্ষমা করা উচিত। সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি বা ভুল- ভ্রান্তি হয়েই থাকে। এতে একে অপরের সঙ্গে কলহ- বিবাদ তৈরি করে। তবে সেই কলহ দীর্ঘ স্থায়ী না করে মিটিয়ে নিন। একে অপরকে ক্ষমা করে দিন। তবেই একে অপরের প্রতি বিশ্বাস সম্পর্ককে আরও জোরালো করে। সম্পর্কের বাঁধন মজবুত হয়।

আরো পড়ুন »
astro tips

মাথায় ঋণের বোঝা? চিন্তায় ঘুম উড়তে বসেছে? এই জ্যোতিষ টোটকাতেই অর্থলাভ

ব্যুরো নিউজ, ১৬ জুন: সংসারে টানাটানি থেকে মুক্তি পেটে অনেকেই ঋণ নিয়ে থাকেন। অথবা আচমকা আসা অর্থ সংকটেও অনেকেই এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হন। কিন্তু সেই বড় অঙ্কের অর্থ সুদ-সহ মেটাতে কালখাম ছোটে। ফলে সেই ঋণ মেটাতে ফের আরেক ঋণ। এই ভাবে একের পর এক ঋণের বোঝা নিয়ে জীবন একেবারে দুর্বিষহ! এই সংকট থেকে মুক্তি পেতে মেনে চলুন এই জ্যোতিষ টোটকা। দুর্দান্ত ইন্টারভিউ দেওয়ার পরেও নেট রেজাল্ট ‘০’! মেনে চলুন এই টোটকা, সাফল্য আসবে হাতের মুঠোয় বৈদিক জ্যোতিষ মতে অর্জুন গাছের ছাল ব্যবহারে ঋণ থেকে মুক্তি পেতে পেরেন। অর্জুন গাছের ছাল কীভাবে ব্যবহার করবেন? অর্জুন গাছের ছাল লাল কাপড়ে মুড়ে ঠাকুরের আসনে রাখুন। মা লক্ষ্মীর কাছেও নিবেদন করতে পারেন। পুজোর পরে লাল কাপড় সমেত ওই অর্জুন গাছের ছাল নদীর জলে ভাসিয়ে দিন। অর্জুন গাছের ছালে লাল চন্দনের ফোঁটা দিন তা লাল কাপড়ে মুড়ে আলমারি বা লকারে রেখে দিন। যেখানে অর্থ রাখেন সেখানেও রাখতে পারেন। সন্ধেবেলা সন্ধ্যা পুজ দিয়ে কর্পূরের সঙ্গে অর্জুন গাছের ছালও একসঙ্গে জ্বালান। এর ফলে বাড়িতে থাকা নেগেটিভ এনার্জি দূর হবে। সঙ্গে ঋণের কালো ছায়া থেকে মুক্তি পাবেন। ব্যবসায় বারবার আর্থিক ক্ষতি হলে, অর্জুন গাছের ছাল লাল কাপড়ে মুড়ে গলায় পড়ুন। এতে ব্যবসায় অর্থ লাভ হবে।

আরো পড়ুন »
astrology tips

দুর্দান্ত ইন্টারভিউ দেওয়ার পরেও নেট রেজাল্ট ‘০’! মেনে চলুন এই টোটকা, সাফল্য আসবে হাতের মুঠোয়

ব্যুরো নিউজ, ১৫ জুন: বহু জায়গায় ইন্টারভিউ দিচ্ছেন, ফাটাফাটি ইন্টারভিউ হওয়ার পরেও চাকরির ফাইনাল কল আসছে না। ভাবছেন কোথায় কি মিসটেক, যার জন্য হাতছাড়া হল দুর্দান্ত চাকরির অফার। তবে এমন অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে ভুল বা ত্রুটি কোনটাই আপনার নয়। জ্যোতিষ মতে, অনেক সময় গ্রহের ফেরে চাকরিতে বাধা আসে। কিন্তু এই জ্যোতিষ টোটকাগুলি মেনে চললে কাটবে আপনার বাধা। পার্সে রাখুন এই জিনিস, ফল পাবেন রাতারাতি! একের পর এক ইন্টারভিউ দিয়েও কোনও লাভ হচ্ছে না। কোনও না কোনও কারণে বাদ পড়ছেন। মেনে চলুন এই টোটকাগুলি… সব রাশির জাতক-জাতিকার জন্য শুভ রং আছে। তাই আপনার রাশি অনুযায়ী শুভ রংয়ের পোশাক পড়ে ইন্টারভিউ দিতে যান। এছাড়া হলুদ রংয়ের পোশাকও পড়ে ইন্টারভিউ দিতে পারেন। যে কোনও কাজে হলুদ খুব শুভ বলেই মনে করা হয়। মনে করা হয় হলুদ রং সৌভাগ্য নিয়ে আসে। হলুদ রংয়ের পোশাক পরা সম্ভব না হলে, হলুদ বা সোনালী রঙের কাপড় সঙ্গে রাখুন। এই রঙের রুমাল বা কাপড়ের টুকরো ব্যাগে রেখে দিন। প্রতি বৃহস্পতি ও রবিবার গোরুকে শস্যদানা ও জল খাওয়ান। গোরুকে ঘাসও খাওয়াতে পারেন। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, গোরুকে ঘাস খাওয়ালে পূণ্য লাভ হয়। জীবনের সকল বাধা কেটে যায়।

আরো পড়ুন »

সময়টা ভালো চলছে না? আর্থিক সমস্যা, পারিবারিক অশান্তি? মেনে চলুন এই জ্যোতিষ টোটকা

ব্যুরো নিউজ, ১৪ জুন: সময়টা ভালো চলছে না? আর্থিক সমস্যা, পারিবারিক অশান্তির পাশাপাশি হওয়া কাজেও বাধা? চিন্তা না করে মেনে চলুন এই জ্যোতিষ টোটকাগুলি। কয়েক দিনেই উপকার পাবেন! পার্সে রাখুন এই জিনিস, ফল পাবেন রাতারাতি! জীবনে ওঠা-পড়া থাকবেই তা স্বাভাবিক। তবে অনেক সময় দুর্ভাগ্যের কারনেও জীবনে নানা অশান্তি আসতে পারে। পারিবারিক, সাংসারিক, আর্থিক ক্ষেত্রেও নানা দুর্ভোগ পোহাতে হয়। জ্যোতিষ শাস্ত্রে এই সকলের বহু কার্যকরী টোটকা রয়েছে। আজ তেমনই কিছু টোটকা যা আপনার জিবনে দুর্ভোগ কাটিয়ে সাফল্য এনে দেবে এমনই কিছু টোটকা আলোচনা করব। ১. প্রতিদিন পুজো করার সময় তুলসী পাতা নিন। হাতে রেখে ওম নমো ভগবতে বাসুদেবায় মন্ত্র জপ করুন ১০৮ বার। এবার তা খেয়ে নিন। টানা ২ মাস এই টোটকা পালন করুন। এতে খারাপ সময় দূর হবে। ২. ময়দায় চিনি মিশিয়ে পিঁপড়কে খাওয়ান। এতে সৌভাগ্য লাভ করবেন। অনেক সময় দুর্ভাগ্যের কারণে নানা কাজ আটকে থাকে। সেই সকল জটিলতা থেকে মুক্তি পাবেন। ৩. প্রতি মঙ্গল ও শনিবার হনুমানজির পুজো করুন। আর বাজ সিঁদুর নিবেদন করুন। সেই সিঁদুরের টিপ নিজে কপালে পরুন। এতে হনুমানজির কৃপা আপনার ওপর পড়বে। দুর্ভোগ কাটবে জীবনে আসবে সাফল্য। ৪. বৃহস্পতিবার মেনে চলতে পারেন এই টোটকা। একটি নারকেল হলুদ কাপড়ে মুড়ে নিন। এবার তা বিষ্ণু মন্দিরে দিয়ে আসুন। প্রতি বৃহস্পতিবার এই টোটকা পালন করলে ভগবান বিষ্ণু তুষ্ট হন। সকল জটিলতা থেকে মুক্তি পাবেন।

আরো পড়ুন »
astro tips

পার্সে রাখুন এই জিনিস, ফল পাবেন রাতারাতি!

ব্যুরো নিউজ, ১২ জুন: জ্যোতিষশাস্ত্র মতে পার্সে এই বস্তুগুলি রাখলে জীবনে নানা উন্নতি যোগ আসে। যা বদলে দিতে পারে আপনার জীবনও। তাই মানি ব্যাগ বা পার্সে কিছু জিনিস রাখলে তা আপনার জীবনের  উন্নতি সাধন তো বটেই। এমনকি শুভ বহু দিক বয়ে আনে। তবে এমন অনেক কিছু আছে যা কখনই পার্সে রাখা উচিত নয়। তবে আজ আলোচনা করা যাক সেই সব জিনিস নিয়ে যা অত্যন্ত শুভ। এবং আপনার মানিব্যাগে রাখলে খুলে যেতে পারে আপনার ভাগ্যের চাবিকাঠি। বাড়িতে কচ্ছপ রাখলে কি হয় জানেন? পাবেন হাজার উপকার! তবে কীভাবে, কোন দিকে স্থাপন করবেন? এক চিলতে সোনা পার্সে রাখলে তা অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। সঙ্গে রাখতে পারেন এছাড়া রুপোর কয়েনও। পার্সে আপনার পরিবারের ছবি রাখতে পারেন। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে প্রিয়জনেদের ছবি পার্সে রাখা বেশ শুভ। হলুদ কাগজে ওম বা স্বস্তিক চিহ্নের ছবি পার্সে রাখলে শুভ ফল লাভ হয় বলে মনে করা হয়। আপনি পার্সে তুলসী পাতাও রাখতে পারেন। তুলসীকে অত্যন্ত শুভ ও পবিত্র বলে মনে করা হয়। পার্সে কখনই বেশি কাগজ রাখবেন না। এতে অর্থের অপচয় ঘটে। দরকারি দু-একটা কাগজ রাখতে পারেন।

আরো পড়ুন »
astro tip turtel

বাড়িতে কচ্ছপ রাখলে কি হয় জানেন? পাবেন হাজার উপকার! তবে কীভাবে, কোন দিকে স্থাপন করবেন?

ব্যুরো নিউজ, ১১ জুন : বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে কচ্ছপ বা কাছিমকে খুবই শুভ বলে মনে করা হয়। তাই বাড়িতে ধাতু বা ক্রিস্টালের কচ্ছপ রাখলে বহু উন্নতি, আনন্দ ও পজেটিভ দিকগুলিকে আকর্ষণ করে। অনেকে অফিসেও কচ্ছপ রেখে থাকেন। এতে চাকরি বা ব্যাবসাক্ষেত্রে উন্নতি হয় মনে মনে করা হয়। তবে বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে, ঘরে জীবন্ত কাছিম রাখা একেবারেই শুভ নয়। শত্রু দমন হোক বা উন্নতি চাণক্য নীতিতেই মিলবে ফল  ঘরে কচ্ছপ রাখার উপকারিতা কচ্ছপের মূর্তি ইতিবাচক দিককে আকর্ষণ করে। অনিদ্রা রোগ থাকলে সেক্ষেত্রে বেডরুমে কচ্ছপ রাখা ভালো বলে মনে করা হয়। মনে করা হয়, ঘরে কচ্ছপ রাখা হলে তা অনিদ্রার বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। কচ্ছপ সৌভাগ্য, সমৃদ্ধি, সম্পদ এবং শান্তি আকর্ষণ করতেও সহায়তা করে। কচ্ছপকে জলে রাখলে এর প্রভাব দ্বিগুণ হয়। কাছিম আপনার পেশাগত ও ব্যক্তিগত জীবনে সামঞ্জস্য আনতে সাহায্য করে। প্রবেশদ্বারে কচ্ছপের মূর্তি রাখা হলে তা আপনার বাড়িকে নেতিবাচক শক্তি থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। কচ্ছপকে উত্তর দিকে রাখা হলে তা আপনার ক্যারিয়ারের জন্য খুব ভালো বলে মনে করা হয়। ধাতব কচ্ছপ- বাস্তু নিয়ম অনুযায়ী, ঘরে ধাতুর কচ্ছপ রাখলে তা সংসারে সুখ, ইতিবাচক শক্তি নিয়ে আসে। এই ধরনের কচ্ছপ নেতিবাচক শক্তি দূর করে এবং ইতিবাচক শক্তি বাড়ির চারপাশে ছড়িয়ে দেয়। ধাতুর কাছিমের জন্য সঠিক দিকনির্দেশ বাড়ির উত্তর বা উত্তর-পশ্চিম দিকে ধাতব কচ্ছপ স্থাপন করা উচিত, এটি শিশুদের জীবনে ভাল ভাগ্য এবং উন্নতে সাহায্য করবে। কাঠের কচ্ছপ- কাঠের কচ্ছপ সৌভাগ্য নিয়ে আসে বলে মনে করা হয়। আপনার বাড়িতে কাঠের কচ্ছপ থাকলে তা সংসারে সম্পদ, ইতিবাচক শক্তি, এবং প্রশান্তি নিয়ে আসে। আপনি বাড়িতে কাঠের কচ্ছপ রাখতে পারেন। এই ধরনের কচ্ছপ ঘরে লক্ষ্মীকে (টাকা) আকর্ষণ করে। ফলে অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি হয়। কাঠের কচ্ছপের জন্য সঠিক দিকনির্দেশ কাঠের কচ্ছপকে পূর্ব বা দক্ষিণ-পূর্ব দিকে রাখা যেতে পারে। এটি পরিবারের সদস্যদের সুখ, সৌভাগ্য এবং সাফল্য বয়ে আনবে। ক্রিস্টালের কচ্ছপ  ঘরে ক্রিস্টালের কচ্ছপ রাখলে ঘরে আনন্দ আসে। আপনি যদি ঘরে একটি স্ফটিক কাছিম রাখেন তবে বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে এটি আপনার উন্নতি বয়ে আনে। ক্রিস্টাল কচ্ছপের জন্য সঠিক দিকনির্দেশ  জীবনে সম্পদ আনতে ক্রিস্টাল কচ্ছপকে দক্ষিণ-পশ্চিমে স্থাপন করা যেতে পারে। জীবনরেখা বাড়াতে ও খ্যাতি চাইলে তা  উত্তর-পূর্বে স্থাপন করা যেতে পারে। কচ্ছপ কেনার সেরা দিন বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে, শুক্রবার, বৃহস্পতি এবং বুধবারের মতো সপ্তাহিক দিনগুলি কচ্ছপের মূর্তি কেনার এবং ঘরে রাখার জন্য সেরা দিন হিসাবে বিবেচিত হয়।

আরো পড়ুন »

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

ঠিকানা