বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

sikkim-offbeat-place

ঘুরে আসি : সিকিমের অফবিট লোকেশন রানিধুঙ্গা

শর্মিলা চন্দ্র, ৯ মে : পর্যটকদের ঘোরার জন্য সিকিমও কিন্তু পছন্দের একটি জায়গা। বাঙালি পর্যটকরা প্রায় সাড়া বছরই সিকিমে ভিড় জমান। তবে সিকিম গেলে সাধারণত পর্যটকদের তালিকায় গ্যাংটক, উত্তর সিকিমের নাথুলা, ইয়ুমথাং লেক এই সব জায়গাই থাকে। তবে পূর্ব ও পশ্চিম সিকিম পর্যটকদের কাছে এখনো কিন্তু অধরা। এই পশ্চিম সিকিমের একটি অফবিট লোকেশন রানিধুঙ্গা। কবে থেকে খুলছে কেদারনাথের দরজা? দার্জিলিং-এর কাছে পাহাড়ে ঘেরা ছোট্ট গ্রাম দাওয়াইপানি ট্রেক করতে যারা ভালোবাসেন তাদের জন্য সেরা ঠিকানা পাহাড়বাসীর কাছে এটি একটি তীর্থস্থান বলা যায়। রানিধুঙ্গা শব্দের অর্থ রানি পাথর। ওই স্থানে একটি বড় পাথর রয়েছে। যাকে রানিধুঙ্গা বলা হয়। এই জায়গা নিয়ে বেশ কিছু কথা কথিত রয়েছে। কথিত আছে এখানে নাকি সীতা মায়ের পায়ের ছাপ রয়েছে। শুধু তাই নয় এখানে পাথরে গায়ে একটি বিশাল ত্রিশূলও রয়েছে। শুধু তাই নয়, এখানে আরও একটি কথা প্রচলিত রয়েছে। এখানে নাকি সিকিমের রানি লুকিয়ে থাকতেন। সিকিমে নেপাল এবং ভুটানের রাজা যখন আক্রমণ করতেন তখন এই পাহাড়ের খাঁজে লুকিয়ে আশ্রয় নিতেন।দুর্গম এই এলাকায় শত্রুপক্ষ যেতে পারত না। এখানে পাথরের নীচে একটি গুহা রয়েছে। সেখানে নাকি লুকিয়ে থাকতেন সিকিমের রানি। নবরাত্রির সময় এখানে ভিড় হয়। স্থানীয়রা এখানে এসে পুজো করেন। সিকিমের স্থানীয় বাসিন্দারা পায়ে হেঁটে ট্রেক করে এই স্থানে পৌঁছন। যারা ট্রেক করতে ভালোবাসেন তাদের জন্য সেরা জায়গা। ২ কিলোমিটার পাহাড়ে চড়তে সময় লাগে মিনিট ১৫। এখানে গেলে দারুণ অ্যাডভেঞ্চার হবে, সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই আর দেরি না করে একবার ঘুরে আসুন এই অফবিট লোকেশনে। মন্দ লাগবে না।

আরো পড়ুন »
offbeat place to visit

ঘুরে আসি : নিরিবিলিতে সময় কাটাতে চাইলে চলে যান মানসাং-এ

শর্মিলা চন্দ্র, ২ মে : উত্তরবঙ্গের কোনো অফবিট জায়গায় যেতে চাইলে একবার আপনার ট্রাভেল লিস্টে রাখতে পারেন মানসং-কে। এখানে বাসস্থান যেমন কম ফলে পরিবেশ বেশ শান্ত। কালিম্পং থেকে মাত্র ১৮ কিমি দূরে রামধূরার পাশেই অবস্থিত এই সুন্দর পাহাড়ি গ্রাম। আর নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ৮০ কিমি দূরে অবস্থিত। গাড়িতে গেলে সময় লাগিবে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা। চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলো আয়কর দপ্তর! দিতে হবে না পরীক্ষা, ইন্টারভিউ দিলেই চাকরি প্রকৃতি যেন তার সব সৌন্দর্য উজাড় করে দিয়েছে এই গ্রামকে কী দেখবেন- প্রকৃতি যেন তার সব সৌন্দর্য উজাড় করে দিয়েছে এই গ্রামটিকে। চারিদিকে সবুজ পাহাড়, রঙবেরঙের পাহাড়ি ফুল, পাখির কোলাহল, নিচে বয়ে যাওয়া নদী সবকিছুই উপভোগ করতে পারবেন। সঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘার দর্শন তো উপরি পাওনা। যারা পাহাড় ও প্রকৃতি ভালোবাসেন, পাহাড়ে হারিয়ে যেতে মন চায় তাদের জন্য সেরা ঠিকানা হতে পারে মানসং। হাতের মুঠোফোনকে দূরে সরিয়ে কিছুদিন কাটিয়ে আসুন, কথা দিচ্ছি নিরাশ হবেন না। মানসাং-এর মূল আকর্ষণ হল এখান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা। এখানকার জাগ্ৰত শিবমন্দির ও হনুমানজীর মন্দির, বিষ্ময়কর সুন্দর ‘জলসা বাংলো’ আর প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য। এখান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার অসাধারন রূপ দেখে মুগ্ধ হন। এখানে কয়েকদিন থেকে আপনারা ঘুরে নিতে পারেন কালিম্পং, ডেলো, লাভা, লোলেগাঁও, রিশপ, চারখোল, কোলাখাম,ছাঙ্গে ফলস,‌ পানবু ডারা, সিটং, বিদ্যাং ভ্যালী, অহলধারা, পেডং,সিলারিগাঁও, ইচ্ছেগাঁও, তিনচূলে,‌ তাগদা, লামাহাটা, পুডং, রামধুরা সহ আর অনেক কিছু। আপনি চাইলে এখান থেকে নদীর ধারে অথবা জঙ্গলে পিকনিকও করতে যেতে পরেন। কীভাবে যাবেন- ট্রেনে গেলে এনজিপি নামতে হবে। এখান থেকে গাড়ি করে গন্তব্যে পৌঁছতে পারবেন। বিমানে গেলে ওখানকার নিকটতম বিমানবন্দর হলো বাগডোগরা। বাগডোগরা নেবে আপনাকে গাড়ি নিতে হবে। ওখানে গিয়ে আপনি যে হোটেল বা হোমস্টেতে থাকবেন তাদের বললে তারাও অনেক সময় গাড়ির ব্যবস্থা করে দেয়।

আরো পড়ুন »
income-tax-photo

চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলো আয়কর দপ্তর! দিতে হবে না পরীক্ষা, ইন্টারভিউ দিলেই চাকরি

ব্যুরো নিউজ, ১ মে: নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলো আয়কর বিভাগ। সম্প্রতি আয়কর দপ্তর একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর পদে নিয়োগের কথা জানিয়েছে। আপনি কি পাবলিক প্রসিকিউটর পদে আবেদন করতে চান? তাহলে আর দেরি কেনো? সুযোগ দিচ্ছে আয়কর দপ্তর। তবে এক্ষেত্রে অফলাইনে আবেদন করতে হবে চাকুরী প্রার্থীদের। পুরুষ, মহিলা উভয়েই এই পদে আবেদনের যোগ্য। বিস্তারিত জানতে পড়ুন এই প্রতিবেদন। নোটিশ নম্বর:- Pr. CCIT/MP/Tech/Special Public Prosecutors (SPPs)/2024-25 কবে নোটিশ প্রকাশ হয়েছে – ০৯/০৪/২০২৪। শূন্যপদের নাম:- স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর (SPP) শূন্যপদের সংখ্যা:- এক্ষেত্রে শূন্যপদ মাত্র ১টি। প্রয়োজনীয় যোগ্যতা:- আবেদনকারী প্রার্থীকে অবশ্যই অ্যাডভোকেট হতে হবে। সেক্ষেত্রে নূন্যতম ৭ বছর চাকরির অভিজ্ঞতা বাঞ্ছনীয়। নিয়োগ প্রক্রিয়া:- ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে এই নিয়োগ করা হবে। নিয়োগ স্থান:- ভোপালের আয়কর দফতর। কিভাবে আবেদন করবেন ? 1) অফলাইনে আবেদন করতে হবে প্রার্থীকে। 2) প্রথমে www.incometaxindia.gov.in ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আবেদন পত্রটি ডাউনলোড করুন। 3) তারপর আবেদন পত্রটি প্রিন্ট করিয়ে নিন। 4) ভালো করে ওই আবেদনপত্র ফিলাপ করুন। 5)সব প্রয়োজনীয় সমস্ত প্রয়োজনীয় নথিপত্র যেমন পরিচয়পত্র, বার্থ সার্টিফিকেট, শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট, জাতিগত শংসাপত্রের ফটোকপি, দুই কপি কালার পাসপোর্ট সাইজ ছবি। 6) সব নথি আবেদন পত্রের সঙ্গে যুক্ত করে খামে ভরে নির্দিষ্ট ঠিকানায় প্রেরণ করুন। কোন ঠিকানায় আবেদন পত্র পাঠাবেন:-O/o the Pr. Chief Commissioner of Income Tax, MP & CG, Bhopal বি দ্রঃ- ১০/০৫/২০২৪ তারিখ বিকেল ৫ টার মধ্যে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে

আরো পড়ুন »
t20 world cup team

বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়লেন জনপ্রিয় ভারতীয় ক্রিকেটার! ফিরলেন কারা? বড় ঘোষনা ভারতের তরফে !!

ব্যুরো নিউজ, ১ মে: টিম ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করা হলো। পূর্বের মতোই BCC অধিনায়ক করেছে রোহিত শর্মাকে। সহ অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া। ঋষভ পন্থ এবং সঞ্জু স্যামসনও করেছেন কামব্যাক। কিপিংয়ের দায়িত্বে থাকছেন তাঁরা। দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় দলে ব্রাত্য থাকা যুজবেন্দ্র চাহালও ফিরেছেন কুলদীপের সঙ্গে বিশ্বকাপে। থাকছেন শিবম দুবেও। ঈশান কিষান ও শ্রেয়স আইয়ার অবশ্য সুযোগ পেলেন না। বিশ্বকাপের ভারতীয় দলে রইলেন কারা ? প্রত্যাশিতভাবে এবার বিশ্বকাপে বোলারদের মধ্যে আর্শদীপ সিং, জসপ্রীত বুমরাহ ও মহম্মদ সিরাজ সুযোগ পেয়েছেন। এদিকে ময়াঙ্ক যাদবের উপর ভরসা করলেও এখনই সুযোগ দিচ্ছে না বিসিসিআই। পান্ডিয়ার সঙ্গে রইলেন শিবম দুবে রইলেন ফিনিশিংয়ে। তবে সুযোগ পেলেন না রিঙ্কু সিং। রিজার্ভ প্লেয়ারদের তালিকায় রাখা হয়েছে শুভমান গিলকে। যিনি গত বিশ্বকাপেও প্রথম দলে ছিলেন। এদিকে আরেকটি বিষয় জানলে চমকে যাবেন আপনিও। দলের তিন ফর্ম্যাটেই অন্যতম সেরা নাম কেএল রাহুল। এবার তাঁকে সুযোগই দেওয়া হলো না। এমনকি রিজার্ভ দলেও জায়গা পেলেন না তিনি। এছাড়াও সুযোগ দেওয়া হলো না টানা ফর্মে থাকা খেলোয়াড় রুতুরাজ গায়কোয়াড়কে। তাহলে বিশ্বকাপের ভারতীয় দলে রইলেন কারা? অধিনায়ক রোহিত শর্মা, সহ অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া, যশস্বী জয়সওয়াল, বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদব, উইকেট কিপার ঋষভ পন্থ, উইকেট কিপার সঞ্জু স্যামসন, শিবম দুবে, রবীন্দ্র জাদেজা, অক্ষর প্যাটেল, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দ্র চাহাল, আর্শদীপ সিং, জসপ্রীত বুমরাহ এবং মহম্মদ সিরাজ

আরো পড়ুন »
today rashifal

মে মাসের প্রথম দিনে কোনদিকে ঘুরবে আপনার ভাগ্যের চাকা? দেখে নিন এই ৪ রাশির ফলাফল !

ব্যুরো নিউজ, ১ মে: কেমন কাটবে মাসের প্রথম দিন ? মীন – চাকরিতে কর্মরত লোকেরা যদি পরিবর্তনের পরিকল্পনা করে থাকেন তবে তাদের ইচ্ছাও পূরণ হতে পারে। আপনাকে আপনার অর্থের কিছু অংশ দাতব্য কাজে বিনিয়োগ করতে হবে, যা অনেক সমস্যা হ্রাস করবে। যাঁরা রাজনীতিতে তাদের হাত চেষ্টা করতে চান তারা কিছু পদ পেতে পারেন, কিন্তু তাঁদের তাদের কাজে শিথিল করা উচিত নয়। ভ্রমণের সময় আপনি কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাবেন। কুম্ভ – পরিবারের কোনো সদস্য পুরস্কার পেলে আনন্দের পরিবেশ থাকবে।আপনার কোনও বন্ধুর কথায় আপনার খারাপ লাগতে পারে, তাই তাদের কোনো বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবেন না। অন্যান্য কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনায় ঢিলে পড়তে পারে। যারা সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের কঠোর পরিশ্রমে কোন কসরত ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়, তবেই তারা একটি ভাল অবস্থান অর্জন করতে পারে। আপনি একটি দীর্ঘ ভ্রমণে যাওয়ার পরিকল্পনা করতে পারেন। মকর – আপনি যদি আপনার শ্বশুরবাড়ির কারও সাথে দেখা করেন তবে তাঁদের সাথে কোনও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য শেয়ার করবেন না। আপনার বাবা সম্পর্কে কিছু খারাপ লাগতে পারে। আপনার সন্তানদের প্রতি যে কোনও প্রতিশ্রুতি আপনাকে পূরণ করতে হবে। আপনার চারপাশে বসবাসকারী আপনার বিরোধীদের থেকে সতর্ক থাকুন। আপনি আপনার আয় বৃদ্ধির জন্য আপনার প্রচেষ্টাকে ত্বরান্বিত করবেন। আপনার লেনদেন সংক্রান্ত বিষয়ে সতর্ক থাকুন। আপনার স্ত্রীর স্বাস্থ্য সম্পর্কে আপনাকে সচেতন হতে হবে। ধনু – কোনও সিদ্ধান্ত নিলে পরে অনুশোচনা হতে পারে।আপনি আপনার পরিকল্পনার সম্পূর্ণ সুবিধা পাবেন। আপনি যদি কোনও ভুল করে থাকেন তবে আপনাকে কর্মক্ষেত্রে আপনার উর্ধ্বতনদের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। আপনার বাড়িতে যেকোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারেন। সন্তানের নতুন চাকরি পাওয়ায় পরিবেশ মনোরম হবে। যাঁরা বিদেশে ব্যবসা করছেন তারা কিছু ভালো খবর শুনতে পারেন

আরো পড়ুন »
skin-oil-remove

গরমের দিনে মুখের অতিরিক্ত তেল দূর করতে কী করবেন?

ব্যুরো নিউজ, ৩০ এপ্রিল, শর্মিলা চন্দ্র: পাল্লা দিয়ে যেমন বাড়ছে তাপমাত্রার পারদ তেমনই বাড়ছে ত্বকের সমস্যা। বশেষ করে যাদের তৈলাক্ত ত্বক, তাদের সমস্যা দ্বিগুণ। তীব্র গরমে ত্বকে তেলের পরিমাণ আরও বেড়ে যায়, ফলে ত্বকে নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। তার মধ্যে কাজের প্রয়োজনে যাদের প্রতিদিন বাইরে বেড়তে হয় তাদের তো আর রক্ষে নেই। তীব্র গরমে মুখে ময়েশ্চারাইজারও যেমন বেশিক্ষণ থাকে না, তেমন মেকআপ করলেও দ্রুত গলে জল হয়ে যায়। সেই কারণেই এই গরমে ত্বকের পরিচর্যায় বিশেষ নজর রাখা প্র‍য়োজন। কয়েকটি টিপস ফলো করলেই এই গরমে ত্বকের সমস্যা থেকে মিলবে মুক্তি। ত্বকের যত্নে বাড়তি নজর ১) মাড প্যাক এই গরমে মুখের অতিরিক্ত তৈলাক্তভাব দূর করতে মাড প্যাকের জুড়ি মেলা ভার। এই প্যাক যেমন ত্বকের অতিরিক্ত তেল ভাব আটকায়, তেমনই ব্রণ এবং ত্বকের নানা রকম সমস্যার সমাধান করে। বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির, বিভিন্ন রকম প্যাক পাওয়া যায়। ত্বকের ধরন অনুযায়ী এই মাড প্যাক কিনে নিতে হবে। কীভাবে ব্যবহার করবেন- প্রথমে ত্বক ভালো করে নিন। এরপর মাড প্যাক লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন। শুকনো অব্দি অপেক্ষা করুন। এরপর হালকা গরম জলে ধুয়ে নিন। ২) ঘন ঘন ফেসওয়াশ ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন- গরমের দিনে অনেকে ত্বক পরিষ্কার রাখতে ঘন ঘন মুখে ফেসওয়াশ ব্যবহার করেন। কিন্তু অতিরিক্ত ফেসওয়াশ ব্যবহারে ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। সেই জন্য দিনে অন্তত দুবার ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন। ৩) জল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন- গরমের সময় অতিরিক্ত ঘাম হয়, সেজন্য বারবার মুখ ধুতে হয়। সেক্ষেত্রে শুধু জল দিয়েই মুখ ধোয়া বাঞ্ছনীয়। অথবা ওয়েট টিস্যু দিয়ে ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিতে পারেন। এতে ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব নিয়ন্ত্রণে থাকবে। ৪) টোনার ব্যবহার করতে পারেন- মুখের অতিরিক্ত তেল কমাতে টোনার বেশ কার্যকরী। ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়ার পর মহেশচারাইজার লাগানোর আগে টোনার দিয়ে নিন। ত্বকের পিএইচ ব্যালেন্সও নিয়ন্ত্রণে রাখে এই টোনার

আরো পড়ুন »
sago-seed-image

বারবার নকল সাবুদানা কিনে ঠকছেন? জেনে নিন অরিজিনাল সাবুদানা চেনার উপায় !

ব্যুরো নিউজ, ৩০ এপ্রিল, পুস্পিতা বড়াল: বারবার নকল সাবুদানা কিনছেন? খেয়েও যেনো শান্তি পাচ্ছেন না! আজকে আপনাদের জানাবো কীভাবে আসল সাবুদানা এবং নকল সাবুদানা চিনবেন? প্রথমেই বলবো অরিজিনাল সাবুদানা দেখতে কেমন হবে। অরিজিনাল সাবুদানা হবে জলের মতো স্বচ্ছ কাচের টুকরোর মত। প্রথম দেখায় প্লাস্টিকের দানাও ভেবে ফেলতে পারেন অনেকেই (ভয় নেই এটাই অরিজিনাল সাবুদানার প্রধান বৈশিষ্ট্য ) কীভাবে চিনবেন অরিজিনাল সাবুদানা ? এরপর ১টা বাটিতে কিছুটা জল নিয়ে এতে সাবুদানা দিয়ে দিন। মিনিট খানিক অপেক্ষা করুন বা চামচ দিয়ে নেড়ে নিন। দেখবেন জল স্বচ্ছ আছে কিনা। জল যদি দুধের মতো সাদা হতে শুরু করে তাহলে অবশ্যই এটা নকল বা আটার সাবুদানা। এবার আসি রান্নার পর্যায়ে। গ্যাসে হাড়িতে জল এবং সাবুদানা (অবশ্যই ধুয়ে নিবেন) দিয়ে দিন। হালকা করে নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না ফুটে উঠছে। এরপর জল বা দুধ পর্যাপ্ত পরিমাণে দেবেন এবং দানাগুলো পরিপূর্ণ সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করতে থাকবেন। রান্না হয়ে গেলে সাবুর দানাগুলো ট্রান্সপারেন্ট হয়ে যাবে। তখনই বুঝতে পারবেন যে এটাই আসল সাবুদানা। এরপর হালকা চাপ দিয়ে দেখবেন নরম হয়েছে কিনা। মনে রাখবেন খাবার ভালো ভাবে রান্না করবেন নয়তো হজম ভালো হবেনা। সাবুদানার উপকারিতা : ১) সাবুদানাতে প্রচুর পরিমাণে ট্যানিন ও ফ্লেভানয়েড নামে দুটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকার ফলে ফ্রি রেডিক্যালগুলো নষ্ট করে আমাদের ক্যান্সারের মতো মারণব্যাধি থেকে রক্ষা করে। ২) সাবুদানাতে থাকা ক্যালসিয়াম হাড় মজবুত করতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও অস্টিওপোরোসিসের মতো সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়। ৩) সাবুদানায় প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম রয়েছে যা উচ্চ রক্তচাপ হ্রাস করে। এতে করে হৃদরোগজনিত সমস্যা কম হয়

আরো পড়ুন »
Tips for keeping the house cool

এই গরমে এই পদ্ধতি অনুসরণ করলেই হবে কেল্লাফতে! লাগবে না এসি, ঘর হবে মারাত্মক ঠান্ডা

ব্যুরো নিউজ, ২৮ এপ্রিল : আজ আপনাদের বলবো প্রচন্ড গরমের হাত থেকে একতলা কিংবা যেকোনো পাকার বাড়িতে শান্তিতে থাকবার একটা অত্যন্ত সহজ উপায়। যাদের বাড়ি এসি নেই, তাদের জন্য এটি খুবই আরামদায়ক। অপরদিকে, যাদের AC আছে তাদেরও কিন্তু এসিতে লোডটা অনেক কম পড়বে। এর জন্য পাকা বাড়ির ছাদে একটি রাসায়নিক প্রলেপ দিতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক পদ্ধতি। একবার লাগিয়ে দেখুন এই প্রলেপ, ঘর অনেক ঠান্ডা হবে এসি কিনেছেন? জেনে নিন কীভাবে কমাবেন বিদ্যুতের বিল রাসায়নিক প্রলেপ দিতে কী কী লাগবে? কলিচুন + জিঙ্ক অক্সাইড + হোয়াইট সিমেন্ট + ফেবিকল। এবার আসা যাক পদ্ধতিতে। প্রথমে পাথুরে চুন পরিমাণমত কিনে নিতে হবে। পাথুরে চুন সারারাত ভিজিয়ে রেখে দেবেন সিলভারের বালতিতে বা (ভূষিমাল দোকান থেকে তেলের একটা খালি টিন কিনে এনে, সেটাতেই পারলে ভিজিয়ে রাখবেন) পরের দিন ভোরবেলা সূর্য ওঠার আগেই সব একসাথে মিশিয়ে গাঢ় তরল আকারে করে নিলেন। অতঃপর একটি মগ দিয়ে ছাদে ফেলে ঝাঁটা দিয়ে দিতে হবে (ঠিক যেমনটি করে ধান ঝাড়াইয়ের পূর্বে গোবরজল দিয়ে উঠানে ঘোলা মারা হয়)। 11/13 একটা রুমের জন্য 5 কেজি পাথুরে চুন + 1.5 কেজি হোয়াইট সিমেন্ট + 1.5 কেজি তরল ফেবিকল (প্যাকেটে যেটা পাওয়া যায়) + 1 কেজি জিঙ্ক অক্সাইড।এতে যথেষ্ট মোটা আস্তরণ হয়ে যাবে। তবে এটার বৈধতা ২ থেকে ৩ বছর। বর্ষার টানা বৃষ্টি খেলে কিন্তু ওটা আস্তে আস্তে ধুয়ে যাবে। কত খরচ হবে? খুব স্বল্প খরচে আপনি ছাদের উপর এই প্রলেপটি করাতে পারবেন। একটা রুমের জন্য মাত্র প্রায় ৭০০ থেকে ৮০০ টাকার মত খরচ হবে। এতে ছাদের কোনোরকম ক্ষতি হবে না বরং ছাদ আরও টেকসই হবে।

আরো পড়ুন »
found underater mountain

দু’কোটি বছর আগের পর্বতমালার খোঁজ মিলল সমুদ্রগর্ভে, সঙ্গে রয়েছে চারটি আগ্নেয়গিরিও! জানেন কী এর ইতিহাস?

ব্যুরো নিউজ, ২৭ এপ্রিল: কথায় আছে ইতিহাস ফিরে আসে বারবার। বছরের পর বছর ইতিহাস বারবার ফিরে আসে আমাদের গৃহ চক্রে। তার মধ্যে আবার বয়ে চলে বিভিন্ন বিতর্ক।পৃথিবীর এক ভাগ স্থল এবং তিন ভাগ জল। আর এই তিন ভাগ জলের মধ্যে শতকরা দুই ভাগই মানুষের অজানা। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন বিজ্ঞানীরা বছরের পর বছর ধরে সমুদ্রের তলায় চালিয়েছে সন্ধান। কখনও ফুটে উঠেছে কোনও ইতিহাস আবার কখনও বা খোঁজ পাওয়া গিয়েছে অজানা সামুদ্রিক প্রাণীর।ঠিক সেইভাবেই এবার এক পর্বতমালার সন্ধান পাওয়া গিয়েছে সমুদ্রের অতলে ডুব দিয়ে। সমুদ্রের তলায় একটি অনুসন্ধানকারী দল পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয় কমনওয়েলথ সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ অর্গানাইজেশনের তরফে।সেই পর্বতমালার বয়স প্রায় দু’কোটি বছর! ইডেনে কেকেআর-এর বিরুদ্ধে পঞ্জাব কিংসের বিধ্বংসী ব্যাটিং দেখে মাঠ ছাড়লেন বিরক্ত কিং খান সম্প্রতি সিএসআইআরও সমুদ্রের তলায় আটটি আগ্নেয়গিরির মধ্যে চারটি আগ্নেয়গিরি আবিষ্কার করেছে ভেসেল ইনভেস্টিগেটর’-এর মাধ্যমে আন্টার্কটিকা এবং তাসমানিয়া এলাকার মধ্যবর্তী ২০ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে চালানো হয় সন্ধান।দক্ষিণ মহাসাগরে অনুসন্ধান চালানো হয়, সিএসআইআরও-এর তরফে ‘হাই রেজ়োলিউশন ম্যাপিং’ পদ্ধতি ব্যবহার করে।‘আন্টার্কটিক সারকামপোল কারেন্ট’ নামে য‌ে তীব্র গতির স্রোত মহাসাগরের যে অংশে বয়ে যায়, সেখানেই সিএসআইআরও অতলে খোঁজ চালিয়েছে।এক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে , চার হাজার মিটার গভীরে দক্ষিণ মহাসাগরের নির্দিষ্ট একটি এলাকায় আটটি সুপ্ত আগ্নেয়গিরির অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছিল আগেই। সম্প্রতি সিএসআইআরও সমুদ্রের তলায় আটটি আগ্নেয়গিরির মধ্যে চারটি আগ্নেয়গিরি আবিষ্কার করেছে।সেই সূত্রে জানা গিয়েছে,১৫০০ মিটারের কাছাকাছি কোনও কোনও আগ্নেয়গিরির উচ্চতা।পাশাপাশি সূত্রের খবরে জানা গিয়েছে, চারটি আগ্নেয়গিরির সন্ধান পেয়ে আনন্দ প্রকাশ করেছেন সিএসআইআরও-এর ভূতত্ত্ববিদ ক্রিস ইউলে।শুধু তাই নয়,তিনি চ্যুতিরেখা বরাবর চারটি আগ্নেয়গিরির গুরুত্বসহ সেগুলির পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনাও ভাগ করে নেন সকলের সঙ্গে।ক্রিস জানান,আগ্নেয়গিরিগুলির খোঁজ পাওয়া গিয়েছে ম্যাককুয়েরি দ্বীপ থেকে ৩৭০ কিলোমিটার পশ্চিমে ম্যাককুয়েরি রিজের কাছে। এই অঞ্চলে গত দু’কোটি বছর ধরে সঞ্চয় হয়েছে ম্যাগমা।এই খবর সূত্রে ‘ফোকাস’-এর বিজ্ঞানী বেনোইট লেগ্রেসি জানিয়েছেন,”কার্বন-ডাই-অক্সাইডের নির্গমন বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে সমুদ্রে তার প্রভাব পড়ে।পাশাপাশি, বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে যে পরিমাণ তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়, তা ছড়িয়ে পড়ে সমুদ্রের গভীরে। ফলে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে পড়ে সমুদ্রের গতিপ্রকৃতি পর্যবেক্ষণ করে সেগুলোর বর্ণনা করা।” তবে একটি সংশয় থেকেই যায়,সেটি হল : যে আগ্নেয়গিরিগুলি দু’কোটি বছর পুরনো পর্বতমালার উপর রয়েছে, সেগুলি কোনও দিন আদৌ ফাটবে না কি সারাজীবন সেগুলি সুপ্ত অবস্থাতেই থাকবে?এই প্রশ্নের উত্তর মেলেনি এখনও।তাই এই প্রশ্নের উত্তর দেবে ‘সময়’।সময়ের সাথে সাথে আগ্নেয়গিরিগুলির আদৌ কোনো পরিবর্তন হবে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়।

আরো পড়ুন »
get a confirmed railway ticket

মোদীর কনফার্ম টিকিটের ‘গ্যারান্টি’

ব্যুরো নিউজ, ২৫ এপ্রিল:  এখন কোথাও যেতে হলে এক- দু মাস আগে নয় পাক্কা চার মাস আগে থেকে মেলে রেলের রিজার্ভেশন টিকিট। আইআরসিটিসি বা রেল কাউন্টার যে কোনও জায়গা থেকেই সেই টিকিট সহজেই সংগ্রহ করা যায়। তবে তা আর সহজ নেই বরই দুর্বিষহ! কারন এখন দূরপাল্লার ট্রেনের কনফার্ম রিজার্ভেশন টিকিট মেলা বড়ই কঠিন ব্যপার। হয় ৩-৪ মাস আগে নিজেদের টিকিট কেটে রাখতে হবে। নয়তো যাওয়ার একমাস আগে কনফার্ম টিকিট মেলা প্রায় দুষ্কর ব্যপার। ভাগ্য সহায় থাকলে মিলতে পারে আরএসি টিকিট নয়তো দীর্ঘ ওয়েটিং লিস্টে অপেক্ষা। আর টানা হলে একান্তই যাত্রার  আগে তৎকাল টিকিট। তবে সে অনিশ্চয়তায় কি আর গোটা পরিবার নিয়ে ঘুরতে যাওয়া যায়? বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরীর বিরুদ্ধে কুরুচিকর মন্তব্য! অভিষেকের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে বিজেপি তবে এ ঝামেলা আর বেশি দিন পোহাতে হবে না। সব যাত্রীই রেলের কনফার্ম টিকিট পাবে। এমনটাই জানান কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। এর আগে প্রধানমন্ত্রী রেলের উন্নয়ন ও যাত্রী সাচ্ছন্দের কথা মাথায় রেখে একাধিক প্রকল্পের ঘোষণা করেছেন। এনেছেন উন্নত মানের রেল ও পরিষেবা। বন্দেভারত নমো ভারত তো রয়েছেন। এছাড়াও মোদী অমৃত ভারত স্টেশন প্রকল্পের অধীনে 553টি রেলওয়ে স্টেশনের পুনর্নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। এতে করে স্টেশন গুলিকে নয়া প্রযুক্তি ও পরিকল্পনায় সাজিয়ে তুলছেন প্রধানমন্ত্রী। অশোক গেহলটের বিরুদ্ধে ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ  এই ভোট লগ্নে কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব জানান, আগামী পাঁচ বছর আর ট্রেনের টিকিট রিজার্ভেশন নিয়ে ঝঞ্ঝাট পোহাতে হবে না। সব যাত্রীর টিকিট কনফার্ম হবে। বৈষ্ণব দাবি করেন, গত ১০ বছরে মোদি রেলের অভূতপূর্ব রূপান্তর ঘটিয়েছেন। এরফলে যাত্রী পরিবহণ ক্ষমতা এতটাই বেড়ে যাবে যে, যে কোনও যাত্রীই কনফার্ম টিকিট পাবেন। এছাড়াও তিনি জানান, গত এক দশকে ৩১ হাজার কিমি রেলের নতুন ট্রাক তৈরি করা হয়েছে।

আরো পড়ুন »

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

ঠিকানা