বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

Shuvendu Adhikari

রাজভবনের পরবর্তী বিকল্প জায়গায় ধরনার প্রস্তাব শুভেন্দুর

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন  : লোকসভা নির্বাচন শেষ হলেও এখনও ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত। অন্যদিকে এই ভোট পরবর্তী হিংসায় ‘আক্রান্ত’ ব্যক্তিদের নিয়ে রাজভবনে গেলে পুলিশের কাছে ঢুকতে বাধা পান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে ভোট পরবর্তী হিংসার প্রসঙ্গে জানাতে চেয়েছিলেন বিরোধী দলনেতা। যদিও সেদিন অনুমতি না পেলেও পরে একদিন রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভোট পরবর্তী অশান্তির প্রসঙ্গে রাজ্যপালকে অবগত করেন শুভেন্দু অধিকারী। ‘অপরাধী নিষ্কৃতি পাবে না’, হুঁশিয়ারি শিক্ষামন্ত্রীর কোন জায়গায় মিলবে অনুমতি, জানা যাবে আগামী মঙ্গলবার তবে প্রথম দিন রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে বাধা পেয়ে সেদিনই রাজভবনের সামনে ধরনায় বসতে চেয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। যদিও রাজভবনের বাইরে ধরনায় বসার অনুমতি দেয়নি পুলিশ। যেহেতু সেখানে ১৪৪ ধারা জারি তাই পুলিশি অনুমতি মেলেনি। যদিও প্রশাসনের তরফে অন্য জায়গায় ধরনায় বসার কথা বলা হয় বিজেপি নেতৃত্বকে। কিন্তু বিজেপি সেই প্রস্তাব মানতে চায়নি। এরপর তারা আদালতের দ্বারস্থ হয়। বিজেপির আইনজীবী প্রশ্ন তোলেন, গত বছর অক্টোবর মাসে তৃণমূলের এক নেতা রাজভবনের সামনে ধর্নায় বসেছিলেন। অন্তত ৫ দিন ধরে তারা ধর্নায় বসেছিলেন। তখন কেন রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের তরফে আপত্তি জানানো হয়নি। সেই প্রশ্নের উত্তরে বিচারপতি অমৃতা সিনহা জানান, তৃণমূল ধরনায় বসেছিল বলেই যে বিজেপিকে ধরনায় বসার অনুমতি দিতে হবে বিষয়টা কিন্তু তেমন নয়। ২১ জুনের মধ্যে বিজেপিকে বিকল্প জায়গায় নাম জানাতে বলেছিল আদালত। সেই মতো এবার বিকল্প জায়গার কথা জানালো গেরুয়া শিবির। যদিও ভবানীভবন নাকি নবান্নে ডিজি দফতরের সামনে ধরনায় বসবে সেই নিয়ে এখনও পরিষ্কারভাবে কিছু জানানো হয়নি। কলকাতা হাইকোর্টে আগামী মঙ্গলবার এই মামলার পরবর্তী শুনানি। এখন দেখার ধরনায় বসার জন্য কোন জায়গার অনুমতি পায় বিজেপি।

আরো পড়ুন »
noukadubi sundarban

সুন্দরবনের কাছে বঙ্গোপসাগরে ডুবল ট্রলার! নিখোঁজ ১৩

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন: সমুদ্র থেকে মাছ ধরে ফেরার পথে বিপত্তি। ডুবে গেল একটি ট্রলার। নিখোঁজ ১৩ জন মৎস্যজীবী। দুদিনের ভারত সফরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরবনের কেঁদো দ্বীপের কাছাকাছি বঙ্গোপসাগরে ডুবল ট্রলার। জানা গিয়েছে, গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছিল ট্রলারটি। মাছ ধরে ফেরার পথে ঘটে বিপত্তি। জলের হোস্ট পাইপ ফেটে ডুবে যায় ট্রলার। কাছাকাছি থাকা অন্যান্য মৎস্যজীবীদের ট্রলার এগিয়ে এসে ১৮জন মৎস্যজীবীকে উদ্ধার করেছে। তবে জানা গিয়েছে, এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ১৩ জন। গত ১৫ রায়দিঘি ঘাট থেকে আসিয়া নামে ট্রলারে করে মাছ ধরতে যায় ওই মৎসজীবীরা। গত সোমবার থেকে মৎস্যজীবী সহ ট্রলারের খোঁজ না পেয়ে, বিষয়টি জেলা মৎস্য দফতর ও প্রশাসনকে জানিয়েছে মৎস্যজীবী সংগঠন। এখনও খোঁজ মেলেনি ট্রলারের। নিখোঁজ ১৩ জন মৎস্যজীবী- সহ ট্রলারটির খোঁজ চালানো হচ্ছে। নিখোঁজ মৎস্যজীবীরা সকলেই সুন্দরবন এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

আরো পড়ুন »
Shuvendu Adhikari

আন্তর্জাতিক যোগা দিবসে সামিল হয়ে ভাতা-ভর্তুকির খোঁচা দিতে ছাড়েননি শুভেন্দু অধিকারী

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন : দিঘায় যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এদিন দিঘায় সমুদ্রের পাড়ে একটি জায়গায় আয়োজন করা হয় যোগ দিবসের অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানে সামিল হয়ে যোগ অভ্যাস করতে দেখা যায় শুভেন্দু অধিকারীকে। জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে সূচনা করা হয় অনুষ্ঠানের। এছাড়াও এদিন তিনি নরেন্দ্র মোদীর নানা সমাজ সংস্কারের কথা বলেন। এছাড়াও, আন্তর্জাতিক যোগা দিবসে ভাতা-ভর্তুকির খোঁচা দিতে ছাড়েননি শুভেন্দু অধিকারী। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত আমডাঙা এদিন শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘স্বচ্ছ ভারত থেকে শুরু করে নানান সমাজ সংস্কারের কাজ করেছেন নরেন্দ্র মোদী। যারা ভাতা- ভর্তুকিতে আটকে, ধর্মান্ধতায় আটকে আছেন, সংকীর্ণ সাম্প্রদায়িকতায় আটকে আছেন তাঁদের বলব এই সব থেকে বেড়িয়ে এসে ভারতীয় হন। দেশের প্রধানমন্ত্রীকে অনুসরন করুন।’ এছাড়াও, রাজ্য সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, রাজ্য সরকার মানে জনগনের সরকার। কেন্দ্র সরকার মানেও জনগনের সরকার। তবে আমাদের এই রাজ্যে বোধ-বুদ্ধির অভাব এখনও আছে। সেই অভাব যদি কাটে তবে ভালো। পাশের রাজ্য ওড়িশার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ওড়িশাকে দেখে বাংলার শেখা উচিত।

আরো পড়ুন »
tmc clash

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত আমডাঙা

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন : ভোট মিটলেও অশান্তি কিন্তু এখনো অব্যাহত রয়েছে। তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল ব্যারাকপুর লোকসভা আমডাঙ্গা বিধানসভায় বোদাই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। বাঁশ-লাঠি নিয়ে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় দুই পক্ষের ৪ জন আহত হয়েছে বলে খবর। আহতদের চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় বারাসাত জেলা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। আহতদের হাসপাতালে দেখতে যান আমডাঙার বিধায়ক রফিকুর রহমান। ইনকাম ট্যাক্সের নিয়মে বড় বদল, রইল বিস্তারিত সংঘর্ষের জেরে আহত দুই পক্ষের ৪ জন তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। পঞ্চায়েত সদস্য রাকিবুল ইসলামের সঙ্গে তাঁর অনুগামীরা মোটরসাইকেলে করে বোদাই গ্রাম পঞ্চায়েতের খুড়িগাছির দিকে যাচ্ছিল, তখন তৃণমূলের আর এক গোষ্ঠী তোয়েব আলির অনুগামীরা তাদের বাইক থেকে নামিয়ে বাঁশ লাঠি, লোহার রড দিয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, পঞ্চায়েত সদস্য রাকিবুল ইসলামের ও তার অনুগামীদের মাথায় বন্দুকের বাট দিয়ে মারে বলেও অভিযোগ। যোগ দিবসে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বার্তা প্রধানমন্ত্রীর স্থানীয়রা এসে দুই পক্ষের ঝামেলা মেটায়। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে আমডাঙার বিধায়ক রফিকুর রহমান হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। তবে ঠিক কী কারণে তৃণমূলের এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধল সেই বিষয়ে স্পষ্টভাবে কিছু জানা যায়নি। লোকসভা নির্বাচন শেষ হলেও বারং বার প্রকাশ্যে আসছে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। কিছুতেই মিটছে না ভোট পরবর্তী হিংসা।

আরো পড়ুন »
CBI Summoned Tapas Saha

এবার সিবিআইয়ের নজরে তৃণমূল বিধায়ক তাপস সাহা

ব্যুরো নিউজ, ২১ জুন : এবার সিবিআই-এর নজরে তৃণমূল বিধায়ক তাপস সাহা। টাকার বিনিময়ে চাকরি দুর্নীতি মামলায় শুক্রবার তাপস সাহাকে নিজ প্যালেসে তলব করেছে সিবিআই। এর পাশাপাশি আরও তিনজনকেও তলব করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। আবারও রাজ্য-রাজ্যাপাল সংঘাত! রাজভবনে থেকেও পশ্চিমবঙ্গ দিবসে অনুপস্থিত রাজ্যপাল জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিজাম প্যালেসে তলব এই নিয়ে দ্বিতীয়বার তৃণমূল বিধায়ককে তলব করল সিবিআই। প্রথমবার সিবিআইয়ের তলবে হাজিরা দিয়েছিলেন তাপস সাহা। এর পাশাপাশি তৃণমূল বিধায়কের নদিয়ার তেহট্টের বাড়িতেও তল্লাশি চালায় সিবিআই আধিকারিকরা। শুধু তার বাড়ি নয়, তাপস সাহার আপ্ত সহায়কের বাড়ি ও বাড়ির পাশের পুকুরেও তল্লাশি চালায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তল্লাশি অভিযানের সময় সিবিআইয়ের নজরে আসে প্রমাণ লোপাটের জন্য পুকুরের পাশে কিছু নথি পোড়ানো হয়েছে। পরীক্ষার জন্য সেই পোড়া জিনিস সংগ্রহ করে নিয়ে যান আধিকারিকরা। উল্লেখ্য, তৃণমূল বিধায়ক তাপস সাহার বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে চাকরি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে বলে দাবি তদন্তকারী অফিসারদের। যদিও এই অভিযোগের ভিত্তিতে তৃণমূল বিধায়কের দাবি তিনি নাকি ষড়যন্ত্রের শিকার। এখন দেখার তদন্তকারীদের তদন্তে কি তথ্য উঠে আসে।

আরো পড়ুন »
Governor Bose issue

আবারও রাজ্য-রাজ্যাপাল সংঘাত! রাজভবনে থেকেও পশ্চিমবঙ্গ দিবসে অনুপস্থিত রাজ্যপাল

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন : ফের রাজ্য- রাজ্যাপাল সংঘাত। আজ ২০ জুন ‘পশ্চিমবঙ্গ দিবস’ পালন করা হল রাজবভনে। তবে এদিন এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস। আর তা নিয়েই শুরু হয়েছে জোর চর্চা। জ্যোতিপ্রিয়র ঘনিষ্ঠ ব্যক্তির থেকে ঋতুপর্ণার অ্যাকাউন্টে ঢুকেছিল টাকা! দ্বিতীয়বার রাজভবনে পশ্চিমবঙ্গ দিবস পালন করা হল। তবে প্রথম থেকেই এই দিনটিকে পশ্চিমবঙ্গ দিবস হিসেবে মানতে নারাজ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এদিন রাজভবনে উপস্থিত থাকা স্বত্বেও কেন অনুষ্ঠানে হাজির হলেন না রাজ্যপাল? তা নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। অনুষ্ঠানে সশরীরে উপস্থিত না হলেও একটি  ভিডিও বার্তা দেন রাজ্যপাল। আর তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে, তবে কি রাজ্য সরকারের সঙ্গে সংঘাত এড়াতেই রাজ্যপাল অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলেন না? এদিকে, কেন্দ্রের তরফ থেকে ২০ জুন দিনটিকে পশ্চিমবঙ্গ দিবস হিসেবে পালন করা হলেও রাজ্য সরকার তা মানতে নারাজ। এই দিনটি বাংলাভাগের স্মৃতি বহন করছে, তাই এই দিনে অনুষ্ঠান করা উচিত নয় বলে মত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যপাধায়ের। রাজ্য সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের প্রতিষ্ঠা দিবস ১ বৈশাখ। তবে, কেন্দ্রের নিয়ম মেনে আজ রাজ্য দিবস পালন করা হয় রাজভবনে। সেখানে জাতীয় সঙ্গীতের পর রাজ্য সঙ্গীত “বাংলার মাটি বাংলার জল” গানটি বাজানো হয়। রাজ্যের মুখ্যসচিবের নির্দেশিকা অনুযায়ী এই গান বাজানোর সময় উঠে দাঁড়াতে হবে। কিন্তু এই গান বাজলেও অতিথিরা উঠে দাঁড়াননি বলেই জানা গিয়েছে। আর তা নিয়েই জোর শোরগোল।

আরো পড়ুন »
Rituparna Sengupta ration scam

জ্যোতিপ্রিয়র ঘনিষ্ঠ ব্যক্তির থেকে ঋতুপর্ণার অ্যাকাউন্টে ঢুকেছিল টাকা!

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন : অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত রেশন দুর্নীতি মামলায় জড়িত। ইডি আধিকারিকদের এমন তথ্য পাওয়ার পর থেকে ইডির নজরে অভিনেত্রী। চলতি মাসের প্রথম থেকেই ইডি -র নজরে অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। রেশন দুর্নীতি মামলায় ইতিমধ্যেই একাধিকবার ED দফতরে হাজিরা দেওয়ার ডাক পড়েছে অভিনেত্রীর। তবে গত দুবারের তলব এড়ালেও এবার হাজিরা দিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ১৯ জুন হাজিরার নির্দেশ দেয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। আর সেই মত বুধবার হাজিরা দেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। পাঁচ ৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর সিজিও কমপ্লেক্স থেকে বের হন অভিনেত্রী। হজ : তীব্র দাবদাহে মক্কায় মৃতের সংখ্যা ৯০০ ছাড়িয়েছে অভিনেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য ঋতুপর্ণার একটি সংস্থায় দুর্নীতির প্রায় কয়েক লক্ষ টাকা ঢুকেছে, রেশন দুর্নীতির তদন্ত করতে গিয়ে ইডি আধিকারিকরা এমনই তথ্য জানতে পেরেছিলেন। সেই তথ্যের ভিত্তিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়েছিল অভিনেত্রীকে। ইডি আধিকারিকদের অভিনেত্রী কিছু নথি দিয়েছেন বলে খবর। ব্যাঙ্ক ট্রান্সফারের মাধ্যমে ২০১৩-তে অভিনেত্রীর সংস্থায় ৬০ লক্ষ টাকা ঢুকেছিল। সেই নথি ইডি আধিকারিকদের দিয়েছেন অভিনেত্রী। এমনকী, এরমধ্যে ২০ লক্ষ টাকা যে অভিনেত্রী ২০১৫-তে ফেরতও দিয়েছেন সেই তথ্যও ইডি আধিকারিকদের জমা দিয়েছেন বলে খবর। একটি হিন্দি ছবি তৈরির জন্য অভিজিৎ দাস নামের এক ব্যক্তির থেকে তাঁর সংস্থায় টাকা ঢুকেছিল। সূত্রের খবর অভিজিৎ দাস নামক ওই ব্যক্তি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘনিষ্ঠ। ওই ব্যক্তি ব্যবসায়ী বলে নিজের পরিচয় দিয়েছিলেন। তবে সেই ছবি মুক্তি পায়নি। পরীক্ষার আগের রাতে লক্ষ লক্ষ টাকায় বিক্রি হয়েছিল NEET-র প্রশ্নপত্র! বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি অভিযুক্তর এদিন সিজিও কমপ্লেক্স থেকে বেরিয়ে অভিনেত্রী জানান, কিছু নথি চাওয়া হয়েছি, সেগুলো দিয়েছি। ওরাও সহযোগিতা করেছে, আমিও সহযোগিতা করেছি। এর থেকে বেশি এখন আর কিছু বলতে পারব না। এখন দেখার রেশন দুর্নীতি মামলায় আর নতুন কী কী তথ্য প্রকাশ্যে আসে। অভিনেত্রীর দেওয়া তথ্য ইডির আধিকারিকদের তদন্তের জন্য যথেষ্ট কিনা।আবারও ইডির তলবের মুখোমুখি পড়তে হয় কিনা অভিনেত্রীকে।

আরো পড়ুন »
kolkata-metro

ফের বদল মেট্রোর সময়সূচিতে

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন: ফের বদল মেট্রোর সময় সূচিতে। যাত্রীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে রাত্রীকালীন মেট্রো পরিষেবা চালু করেছিল কলকাতা মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষামূলক ভাবে ব্লু লাইনে এই পরিষেবা চালু হয়েছিল গত ২৫ মে থেকে। এই পরিষেবায় সোম থেকে শুক্র কবি সুভাষ এবং দমদম স্টেশন থেকে মেট্রো ছাড়ছিল রাত ১১টায়। কিন্তু বেশিরভাগ দিনই মেট্রো থাকে ফাঁকা। কিছু সংখ্যক অফিসকর্মীরাই থাকেন মেট্রোতে। রাতে অধিকাংশ স্টেশনে ঢোকার গেট বন্ধ থাকার দরুণ অনেকেই গেট খুঁজে না পেয়ে ফিরে যান। ফলে যাত্রী সংখ্যা কমছে। এতে লোকসান হচ্ছে মেট্রোর। চিন্তা বাড়ছিল মেট্রো কর্তৃপক্ষের। আর সেই কারণেই ফের বদল করা হচ্ছে মেট্রোর সময়সীমা। বায়ুমন্ডলে দূষণ বাড়াচ্ছে ইলন মাস্কের স্টারলিঙ্ক স্যাটেলাইট! আরও বাড়বে দূষণের মাত্রা! কি বলছেন গবেষকরা? রাত্রিকালীন মেট্রো পরিষেবায় বদল এবার থেকে দুই প্রান্তিক স্টেশন থেকে রাত ১১টার পরিবর্তে মেট্রো ছাড়বে রাত ১০টা ৪০ মিনিটে। আগামী সোমবার থেকে চালু হবে নতুন মেট্রো পরিষেবা। মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, রাতের মেট্রো পরিষবায় টোকেন, স্মার্ট কার্ড বিক্রির জন্য কোনও স্টেশনে কাউন্টার খোলা থাকবে না। UPI পেমেন্ট মোড ব্যবহার করে সমস্ত স্টেশনে বসানো ASCRM মেশিন থেকে যাত্রীদের টোকেন নিতে হবে। স্মার্ট কার্ডও ব্যবহার করা যাবে বলে জানানো হয়েছে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের তরফে।

আরো পড়ুন »
Calcutta High Court

ডেবরায় বিজেপি কর্মীর মৃত্যুকে কড়া নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন : জেল হেফাজতে থাকাকালীন ডেবরার বিজেপি কর্মীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে কড়া নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের। আদালতের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবার থেকে থানা ও জেলের সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ সংরক্ষণ করতে হবে। উল্লেখ্য, গত ৪ লোকসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশের দিন ডেবরায় তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীর মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। পুলিশ বিজেপি কর্মী স়ঞ্জয় বেরাকে গ্রেফতার করে। ধৃত ওই বিজেপি কর্মী জেল হেফাজতে থাকাকালীনই অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসার জন্য তাঁকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসার পর তাঁকে মেদিনীপুর প্রেসিডেন্সি জেলে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আবার ওই বিজেপি কর্মী অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে পিজি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। মঙ্গলবার সেখানেই চিকিৎসা চলাকালীন ওই বিজেপি কর্মীর মৃত্যু হয়। শুভেন্দুর দায়ের করা মামলায় ‘চাপে’ রাজ্য সরকার সংরক্ষণ করতে হবে সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ এরপরই বুধবার এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নিজের এক্স হ্যান্ডেলে প্রশ্ন তোলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। বিচার বিভাগীয় তদন্ত হওয়া উচিত বলেও জানান শুভেন্দু। মৃত বিজেপি কর্মী পরিবার বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে সিবিআই তদন্তের দাবিও জানান। তারই প্রেক্ষিতে এবার বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্ট জেল ও থানার সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছে। এর পাশাপাশি নিম্ন আদালতে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে সেই রিপোর্ট কলকাতা হাইকোর্টে পেশ করারও নির্দেশ দিয়েছে। আগামী বুধবারের মধ্যে রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় এসএসকেএম হাসপাতালের অভিজ্ঞ চিকিৎসক দিয়ে বিশেষ দল গঠন করে ময়নাতদন্ত করে ভিডিওগ্রাফিরও নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আগামী ২৬ জুন এই মামলার পরবর্তী শুনানি ।

আরো পড়ুন »
Suvendu-high-court

শুভেন্দুর দায়ের করা মামলায় ‘চাপে’ রাজ্য সরকার

ব্যুরো নিউজ, ২০ জুন : ভোট মিটলেও অব্যাহত ভোটপরবর্তী সন্ত্রাস। বিজেপি কর্মীদের মারধোর, ঘর ছাড়া করা হয়েছে। ভাঙচুর চালানো হয়েছে তাঁদের ঘর বাড়িতে, এমনকি বিজেপি কার্যালয়েও ভাঙচুর চালানো হয়েছে। একাধিক জায়গা থেকে এমনই হাজার হাজার অভিযোগ উঠেছে। আর এই সকল ঘটনায় সরব হয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। ভূস্বর্গে শান্তি ফেরাতে উন্নয়নকে হাতিয়ার মোদীর আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের নিয়ে রাজভবনের সামনে অবস্থানে বসতে চান শুভেন্দু অধিকারী। তবে পুলিশের তরফ থেকে সেই অনুমতি না পাওয়ায় কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন শুভেন্দু অধিকারী। এই মামলার শুনানিতে বিচারপতি অমৃতা সিনহা অন্য কোনও জায়গায় অবস্থানে বসার কথাও তোলেন। তিনি শুভেন্দু অধিকারীর আইনজীবীর কাছে বিকল্প জায়গার সন্ধান চান। এই প্রসঙ্গেই গত বছর অক্টোবর মাসে তৃণমূল ১৪৪ ধারা অমান্য করে রাজভবনের সামনে ধর্ণায় বসেছিল। তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চান তিনি। এ বিষয়ে আগামী শুক্রবারের মধ্যে রাজ্যসরকারকে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। আর সেদিনই অর্থাৎ আগামী ২১ জুন এই মামলার পরবর্তী শুনানি হওয়ার কথা। এদিকে এই বিষয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে একটি পোস্ট করেন শুভেন্দু অধিকারী। যেখানে তিনি পুলিশ কমিশনার বিনীত গয়েলকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমি আপনার ‘শর্তাধীন প্রস্তাব’ গ্রহণ করছি না। কারণ এটি বিশুদ্ধ পক্ষপাত এবং আমাদের দেশে দুটি দলের জন্য দুটি পৃথক নিয়ম থাকতে পারে না। আপনি আগে একই জায়গায়  তৃণমূল নেতাদের ধর্নায় বসার অনুমতি দিয়েছিলেন। আপনার প্রশাসন হাজার হাজার বিরোধী রাজনৈতিক কর্মীদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। এমনকি তিনি এই পক্ষপাতের বিরুদ্ধে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলেন। বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগে রাজ্যপালের হস্তক্ষেপের দাবি করে রাজ্যপাল করে সি ভি আনন্দ বোসকে চিঠিও লিখেছেন বিরোধী নেতা। 

আরো পড়ুন »

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

বিশ্ব জুড়ে

গুরুত্বপূর্ণ খবর

ঠিকানা